আপনি কেন হোম টিউটর হবেন?

ঘরজুরে গুটি গুটি পায়ে দৌড়ে বেড়ানো আমার সন্তান আজ স্কুলে পড়ছে, কাল কলেজ এ পড়বে, পরশু ইউনিভার্সিটি শেষ করে উচ্চশিক্ষা নিবে এবং একদিন  অনেক নাম হবে। সব মা- বাবাদের চোখে তার সন্তানকে নিয়ে একই স্বপ্ন থাকে। আপনার সন্তান অবশ্যই সফল হবে। কিন্তু এজন্য চাই সঠিক পরিচর্যা, বিশেষ করে পড়াশুনার ব্যাপারে একদমই ছাড় দেয়া যাবে না। বর্তমানে মা-বাবারা তাদের সন্তানের পড়াশুনা নিয়ে যথেষ্ট সচেতন। শুরু থেকে বাচ্চার বেসিক স্ট্রং করতে এবং নিয়মিতভাবে পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে নিজেদের পাশাপাশি বাড়িতে আলাদাভাবে টিউটর রাখেন।

 

বর্তমানে শহর এবং মফস্বল এলাকায় হোম টিউশন এর চাহিদা বেড়েই চলছে। বাচ্চা যেন কোনো সাবজেক্ট এ দুর্বল না থাকে তাই আলাদা সাবজেক্ট এর জন্য আলাদা টিউটর দেয়া হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মা বাবাদের জন্য একজন বিশ্বস্ত এবং নির্ভরযোগ্য হোম টিউটর খুঁজে পাওয়া চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। নিজের একাডেমিক দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে স্বাধীনভাবে সময় বাঁচিয়ে অর্থ উপার্জন এবং পেশাগত দক্ষতা অর্জনের সবচেয়ে ভালো সমাধান হচ্ছে হোম টিউশন। আসুন,নিজেকে একজন বিশ্বস্ত এবং দক্ষ হোম টিউটর হিসেবে গড়ে তোলার কারণগুলো জেনে নেই।

 

  • বাড়তি কিছু টাকা আয়ের একটি সহজ এবং নিরাপদ উপায় হলো হোম টিউশন। আপনি যদি গ্রাজুয়েটেড  হন অথবা ইউনিভার্সিটিতে পড়ুয়া স্টুডেন্ট হন তবে নিজের পড়াশুনার খরচ এবং হাত খরচ যোগাতে হোম টিউশনি করতে পারেন। কারণ পড়াশুনার পাশাপাশি একজন হোম টিউটর হিসেবে আপনি কতুটুকু  সময় দিতে পারবেন তা অভিভাবকদের সাথে আলোচনা করে নিজেই স্থির করতে পারেন।

 

  • আপনি যদি একজন ফুল টাইম চাকুরীজীবি হন তবে সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতে বা অফিস শেষে নিজের সুবিধামতো সময় ম্যানেজ করে হোম টিউশনি করিয়ে বাড়তি অর্থ চাহিদা কিছুটা হলেও পূরণ করতে পারেন।

 

  • ফুল টাইম অথবা পার্ট টাইম পেশা হিসেবে হোম টিউটোরিং খুবই উপযোগী পেশা। আপনি কতুটুকু সময় কাজ করবেন সে সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ আপনার উপর।পুরো সপ্তাহ কাজ না করে নিজের সুবিধা অনুযায়ী ৫ থেকে ৬ দিন একটি নির্দিষ্ট সময় বেছে নিতে পারেন। বাকি সময়ে নিজের পড়াশুনা বা অন্যান্য কাজের রুটিন করুন। এভাবে আপনি সময়ের সঠিক ব্যাবহারে দক্ষ হয়ে উঠবেন।

 

  • একজন টিউটর শুধুমাত্র তার স্টুডেন্টকে শেখায় না বরং সে নিজে নতুনভাবে জানতে ও চিন্তা করতে শিখে। একজন স্টুডেন্ট যখন কোনো বিষয়ে আপনাকে বিভিন্নভাবে প্রশ্ন করবে তখন আপনি সে বিষয় নিয়ে বিস্তারিত পড়াশুনা করবেন এবং নতুনভাবে চিন্তা করবেন। অনেক ক্ষেত্রে স্টুডেন্ট -টিউটর আলোচনার মাধ্যমে নিজস্ব সৃজনশীল চিন্তাগুলো বেরিয়ে আসে।

 

  • অভিভাবকের পাশাপাশি  একজন স্টুডেন্টকে পরিপূর্ণভাবে গড়ে তোলার দায়িত্ব কিছুটা হলেও টিউটর এর উপর বর্তায়। এজন্য প্রয়োজন,টিউটর এবং স্টুডেন্ট এর মাঝে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ ও পজিটিভ সম্পর্ক গড়ে উঠা। টিউটর হিসেবে আপনি প্রথম এগিয়ে আসুন এবং স্টুডেন্টকে বোঝার চেষ্টা করুন, যতটা সম্ভব পজিটিভ পরিবেশ বজায় রাখুন  এবং একটি সহজ সম্পর্ক গড়ে তুলুন।  যা আপনাকে পার্সোনাল রিলেশনশিপ ম্যানেজমেন্ট এ আরো দক্ষ করে তুলবে।

 

  • সবসময় নিজের স্টুডেন্টকে সেরাটা দিতে চেষ্টা করুন। স্টুডেন্ট এর  সাথে বিস্তারিত আলোচনা করুন,কোন বিষয়ে  দুর্বলতা রয়েছে তা সনাক্ত করুন এবং যতটা সম্ভব সহজভাবে বুঝানোর চেষ্টা করুন। প্রতিনিয়ত  অভিভাবকদের সাথে যোগাযোগ করুন এবং আপডেট জানান। এভাবে আপনি একজন দক্ষ টিউটর হবার পাশাপাশি অধিক কমিউনিকেটিভ হবেন।

 

  • একজন টিউটর স্টুডেন্ট এর ধরণ অনুযায়ী পড়ানোর পরিকল্পনা করেন। কিভাবে পড়ালে  স্টুডেন্ট বুঝবে, প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারবে, পরীক্ষায় ভালো করবে এ সব কিছু চিন্তা করে  নিজের মতো করে একটি পরিকল্পনা করুন এবং আপনার স্টুডেন্টকে পরিকল্পিত রুটিনে অভ্যস্ত করে তুলুন। আপনার স্টুডেন্ট অবশ্যই সফল হবে এবং আপনার মাঝে দায়িত্ববোধ গড়ে উঠবে।

 

  • একজন টিউটর এর আপডেটেড থাকা খুবই জরুরি। চলতি কোনো ঘটনা, টেকনোলজি, ট্রেন্ড যে কোনো বিষয়ে জানা উচিত যা আপনাকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলতে সাহায্য করবে।

 

  • আপনি যদি অনলাইন টিউটর হতে ইচ্ছুক হন তবে সময় ম্যানেজ আরো সহজ এবং সুবিধাজনক। কারণ অনলাইন টিউটোরিং এ সময় কোনো প্রতিবন্ধকতা নয়, ঘরে বসে যে কোনো সময় যে কোনো দেশের স্টুডেন্ট পড়ানো সম্ভব। এজন্য প্রয়োজন শুধু কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট সংযোগ।

 

  • অনেকে পড়াশুনা শেষ করে এমন  চাকরিতে যোগ দেয় যেখানে নিজের সাবজেক্ট সম্পর্কিত কোনো জ্ঞান বা দক্ষতা কাজে লাগানোর সুযোগ নেই। কিন্তু সবাই তা করে না।যারা দীর্ঘদিন পড়াশুনার পর  নিজের সাবজেক্ট এ অর্জিত জ্ঞান এবং দক্ষতা কাজে লাগাতে চায় তাদের জন্য হোম টিউশন একটি সঠিক সিদ্ধান্ত। আপনার সাবজেক্ট এ পড়ছে এমন স্টুডেন্ট পড়িয়ে আপনার পড়াশুনা নিয়মিতভাবে চর্যা করুন।

 

অভিভাবকেরা নিজেদের ব্যাস্ততার পাশাপাশি সব সময় সন্তানের পড়াশুনার ব্যাপারে খেয়াল করতে পারে না। তাই সন্তানের জন্য একজন নির্ভরযোগ্য ও দক্ষ টিউটর খুঁজে পেলে কিছুটা স্বস্তি পায়। অনেকে এক এক সাবজেক্ট এর জন্য আলাদা টিউটর অথবা সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতে পড়ানোর জন্য আলাদাভাবে টিউটর রাখেন।আপনি যদি নিজেকে একজন দক্ষ টিউটর হিসেবে  গড়ে তুলতে পারেন তবে আপনার চাহিদা বেড়েই চলবে এবং কাজের অভাব হবে না।

Leave a reply:

Your email address will not be published.

Site Footer